সদ্যপ্রাপ্ত
রাজশাহী, সোমবার, ২৫ জুন ২০১৮, ১০ আষাঢ় ১৪২৫
52 somachar
মঙ্গলবার ● ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০১৮
প্রথম পাতা » এক্সক্লুসিভ » বাথটাবে ডুবে শ্রীদেবীর মৃত্যু! রক্তে মিলল অ্যালকোহল?
প্রথম পাতা » এক্সক্লুসিভ » বাথটাবে ডুবে শ্রীদেবীর মৃত্যু! রক্তে মিলল অ্যালকোহল?
৪৯০ বার পঠিত
মঙ্গলবার ● ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০১৮
Decrease Font Size Increase Font Size Email this Article Print Friendly Version

বাথটাবে ডুবে শ্রীদেবীর মৃত্যু! রক্তে মিলল অ্যালকোহল?

অনলাইন প্রতিবেদক, রাজশাহী: অচৈতন্য হয়ে বাথটাবের জলে পড়ে গিয়ে, দম আটকে মৃত্যু হয়েছে শ্রীদেবীর। ময়নাতদন্ত এবং ফরেন্সিক পরীক্ষার রিপোর্টের ভিত্তিতে তেমনই জানাচ্ছে দুবাই পুলিশ।দুবাইয়ের সংবাদমাধ্যম খালিজ টাইমসের দাবি, শ্রীদেবীর রক্তের নমুনায় পাওয়া গিয়েছে অ্যালকোহলও। দাবি, ‘দুর্ঘটনায় ডুবে’ মৃত্যু হয়েছে বলে জানিয়েছেন ফরেন্সিক বিশেষজ্ঞরা।

ইংরেজি এবং আরবিতে লেখা ‘ডেথ সার্টিফিকেট’-এর দুটি কপিও টুইট করেছে খালিজ টাইমস। সেই কপি কতটা প্রামাণ্য তা অবশ্য এখনও আমাদের কাছে স্পষ্ট নয়। ইংরেজি কপিটিতে- ‘দুর্ঘটনার ফলে’ শ্রীদেবীর ডুবে মৃত্যু (অ্যাক্সিডেন্টাল ড্রাউনিং) হয়েছে বলে উল্লেখ করা হয়েছে। ড্রাউনিং বানানটিও সেখানে ভুল (DROWNING-এর বদলে DRAWNING লেখা আছে)।

Khaleej Times has exclusively obtained a copy of #Sridevi’s death certificate that confirms the cause of death as ‘accidental drowning’. She did not suffer a cardiac arrest. EXCLUSIVE details - https://t.co/STLXW5y2VI pic.twitter.com/NcGm6g4oVU
- Khaleej Times (@khaleejtimes) February 26, 2018

খালিজ টাইমসের টুইট করা সেই ‘ডেথ সার্টিফিকেট’

ময়নাতদন্ত এবং ফরেন্সিক রিপোর্ট হাতে পাওয়ার পর দুবাই পুলিশ এবং দুবাই মিডিয়া অফিসও শ্রীদেবীর ডুবে মৃত্যু হয়েছে বলে টুইট করেছে। সেই সরকারি টুইটে কিন্তু কোথায় ‘অ্যাক্সিডেন্টাল’ শব্দটি ব্যবহার করা হয়নি।

ময়নাতদন্ত এবং ফরেন্সিক রিপোর্ট তুলে দেওয়া হয়েছে দুবাইতে ভারতীয় কনসুলেট জেনারেলের হাতে।

Following the completion of post-mortem analysis, @DubaiPoliceHQ today stated that the death of Indian actress Sridevi occurred due to drowning in her hotel apartment’s bathtub following loss of consciousness.
- Dubai Media Office (@DXBMediaOffice) February 26, 2018

তবে পরিবারের হাতে শ্রীদেবীর দেহ কবে বা কখন তুলে দেওয়া হবে তা এখনও পরিষ্কার হয়নি।

পুরোদস্তুর তদন্ত এবং জিজ্ঞাসাবাদ চালাচ্ছে পুলিশ। জেরা করা হচ্ছে বনি কপূরকে। ‘জুমেইরা এমিরেটস টাওয়ার’ হোটেলের যে ঘরে শ্রীদেবী ছিলেন, সেই ঘরটির বাইরের সমস্ত সিসিটিভি ফুটেজ বাজেয়াপ্ত করেছে পুলিশ। দেখা হচ্ছে ঘটনাস্থল এবং আশপাশের সব কিছু। সিল করে দেওয়া হয়েছে ২২০১ নম্বর ঘর, যেখানে শ্রীদেবীর মৃত্যু হয়েছে। বয়ান রেকর্ড করা হচ্ছে হোটেল কর্মীদেরও।
এ দিন সকালেই জানা গিয়েছিল, শ্রীদেবীর দেহ মর্গে রাখা হয়েছে। ফরেন্সিক দফতর তাঁর রক্ত এবং দেহাংশের নমুনা সংক্রান্ত বেশ কিছু রিপোর্ট তখনও জমা দেয়নি। ফলে, ময়নাতদন্ত হয়ে গেলেও ডেথ সার্টিফিকেট মিলছিল না। বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে জানা যায়, ফের ময়নাতদন্ত হতে পারে। উত্তেজনা বাড়তে থাকে। তবে, বেলা সওয়া ১টা নাগাদ ফরেন্সিক দফতর জানায়, তার আর প্রয়োজন নেই।
গত শনিবার রাতে দুবাইয়ের জুমেইরাহ এমিরেটস টাওয়ার থেকে শ্রীদেবীর অচৈতন্য দেহ নিয়ে যাওয়া হয়েছিল হাসপাতালে। সেখানে চিকিৎসকেরা জানান, অনেক ক্ষণ আগেই তাঁর মৃত্যু হয়েছে। (তথ্যসূত্র: আনন্দবাজার পত্রিকা)



আর্কাইভ

PropellerAds

পাঠকের মন্তব্য

(মতামতের জন্যে সম্পাদক দায়ী নয়।)