সদ্যপ্রাপ্ত
রাজশাহী, রবিবার, ১৯ আগস্ট ২০১৮, ৪ ভাদ্র ১৪২৫
52 somachar
রবিবার ● ৩ জুন ২০১৮
প্রথম পাতা » রকমারি » ঈদে সোনামণির বিনোদন ড্রিম হলিডে পার্ক
প্রথম পাতা » রকমারি » ঈদে সোনামণির বিনোদন ড্রিম হলিডে পার্ক
১৬৭ বার পঠিত
রবিবার ● ৩ জুন ২০১৮
Decrease Font Size Increase Font Size Email this Article Print Friendly Version

ঈদে সোনামণির বিনোদন ড্রিম হলিডে পার্ক

নিজস্ব প্রতিবেদক,নরসিংদী :
ঈদের সময় আমরা যারা বড়রা আছি তারা সবাই সেই ছোটবেলার ঈদকেই অনেক মিস করি। কারণ ঈদের সব আনন্দ কিন্তু ছোটদের আর ছোট বেলার। আর এই পবিত্র ঈদে যদি ছোট্ট সোনামণিরাই আনন্দ উপভোগ করতে না পারে তাহলে আর কে করবে? তাই এবার ঈদে সোনামণির বিনেদোনের জন্য তাদের নিয়ে যেতে পারেন নরসিংদীর ড্রিম হলিডে পার্কে।
কাছের এবং দূরের পর্যটকদের আকর্ষণ করার জন্য ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের পাশেই নরসিংদী জেলার পাঁচ দোনার চৈতাবায় অবস্থিত ড্রিম হলিডে পার্কটিতে সবধরণের সুযোগ সুবিধা এবং নতুনত্ব রয়েছে। শিশু এবং প্রাপ্তবয়স্কদের জন্য পার্কে রয়েছে জলে, স্থলে এবং আকাশে বিভিন্ন রাইড।

পর্যাপ্ত নিরাপত্তা ব্যবস্থাসহ এই পার্কটিতে আরো রয়েছে সুপরিসর পার্কিং, থাকার জন্য বাংলো এবং কটেজ। আন্তর্জাতিক মানের রেস্টুরেন্ট পাওয়া যাবে ইন্ডিয়ান এবং চাইনিজ খাবার, কফি হাউজ, আইসক্রিম পার্লার, ফাস্ট ফুডের দোকান, নিরবিচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ সরবরাহ এবং নামাজের ব্যবস্থা।

ড্রিম হলিডে পার্কে পিকনিকের জন্য রয়েছে চমৎকার ব্যবস্থা। পিকনিকের জন্য এখানে রয়েছে ডেকোরেটরের সুবিধা, পর্যাপ্ত সংখ্যক স্বাস্থ্যকর টয়লেট, সুপরিসর শেড, ২৪ ঘণ্টা নিরাপত্তা ব্যবস্থা, সাউণ্ড সিস্টেম (আগাম খরচ দিতে হবে), গাড়ি পার্কিং, বিভিন্ন রাইড, খাবারের ব্যবস্থা (আগাম খরচ দিতে হবে), বিভিন্ন রাইড এবং নিরবিচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ সরবরাহ।

ড্রিম হলিডে পার্কে দুটি পিকনিক স্পট রয়েছে। এগুলো হলো- মায়াবি পিকনিক স্পটের বাংলো (এখানে রয়েছে শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত দুটি কক্ষ) এবং মধুরিমা পিকনিক স্পটের বাংলো (স্কুল, কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয় এবং পারিবারিক আয়োজন এবং পিকনিকের জন্য ব্যবহার করা হয়)।

এখানকার ওয়াটার পার্কে সর্বাধুনিক রাইডে চড়ে আপনি সাগরে চলে যাওয়ার অনুভুতি অর্জন করবেন। ডিজে মিউজিকের ছন্দে এখানকার প্রতিটি মুহূর্ত উপভোগ করবেন। ওয়াটার পার্কের সুযোগ সুবিধার মধ্যে রয়েছে পুরুষ এবং মহিলাদের জন্য পৃথক ড্রেসিং রুম, পৃথক লকার, ওয়াটার পার্কের বিশেষ পোশাক (ভাড়া নিতে হবে), এবং সরকারি ছুটির দিনে ডিজে পরিচালিত মিউজিক সিস্টেম। পার্কের জলজ রাইডগুলোর মধ্যে রয়েছেঃ জেট ফাইটিং, স্পিড বোটিং, সোয়ান বোটিং, বেঙ্গল ব্রিজ, সিডনী ব্রিজ এবং লন্ডন ব্রিজের নীচে বোটিং। এছাড়া শিশুদের জন্য এখানে রয়েছেঃ সুইং চেয়ার, বুল রাইড, ট্রেন এবং গরজিলা। পার্কে প্রবেশ মূল্য হলঃ ১৫০/- টাকা (ভ্যাটসহ)।

যেভাবে যাবেন

ঢাকার গুলিস্তান ও মহাখালি থেকে বাসে করে নরসিংদীতে যেতে পারবেন। গুলিস্তান থেকে মেঘালয় লাক্সারি নামক বাস নরসিংদীর উদ্দেশ্যে ছেড়ে যায়। এই বাসে যেতে ভাড়া পড়বে ৮০/- টাকা। এছাড়া মহাখালি থেকে নরসিংদীর উদ্দেশ্যে ছেড়ে যাওয়া বাসগুলোর মধ্যে রয়েছেঃ পিপিএল ট্রান্সপোর্ট, বিআরটিসি এসি বাস, বাদশা, চলনবিল ইত্যাদি।

এছাড়া টঙ্গী-পুবাইল হয়ে যায় এমন বাসে উঠলে আপনাকে পাঁচদোনায় নামতে হবে এবং সেখান থেকে প্রায় ১০০/- টাকা ভাড়ায় সিএনজি অটোরিকশায় করে পার্কে পৌছাতে পারবেন।

৫২সমাচার/এলটি



আর্কাইভ

PropellerAds

পাঠকের মন্তব্য

(মতামতের জন্যে সম্পাদক দায়ী নয়।)